before

Rounak konok

  • Mentor's name : Molua khan
  • Previous Weight : 86 KG
    Diet : Low Carb Customized
    Weight Losed : 22 KG
    Time : 24 Weeks

24 weeks premium mentorship review

মেন্টর: Molua khan

পূর্বের ওজন:৮৬ কেজি

বর্তমান ওজন:৬৪ কেজি

মোট ওয়েটলস : ২২ কেজি

মেজারমেন্ট কমেছে: ৭ ইঞ্চি

আমি ঠিক সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে আছি যেখানে আমি ৬ মাস আগে দাঁড়িয়ে নিজের ছবি তুলেছি ৷ এরই মধ্যে চলে গিয়েছে ৬ টি মাস আর সাথে ২২ কেজি ওজন ! যে আমি কখনো ভাবিনি ১ কেজি কমাতে পারবো সেই আমি গুটি গুটি করে ২২কেজি কমাতে পারলাম ☺আলহামদুলিল্লাহ্ ! পাশে পেয়েছি লুজ টু গেইনকে ♥ পাশে পেয়েছি আমার দক্ষ মেন্টর @molua khan আপুকে ♥৷ এবং অবশেষে আমি পেরেছি সেই অভিশপ্ত জীবন থেকে বের হয়ে আসতে ৷ আমাদের সোসাইটিতে তো মোটা মানুষ মানেই অসুন্দর, বস্তামার্কা , হাতি etc etc অনেককিছু ! মানে মোটা মানেই ব্যান্ড প্রোডাক্ট!

মনে পড়ে ,যখন আমার আত্নীয়স্বজন, বন্ধু -বান্ধবী,পরিচিত মানুষজন দীর্ঘদিন পরে দেখা হবার পরে “কেমন আছ?” জিজ্ঞাসা করার আগেই বাজেভাবে বলতো “আরে এতো মোটা হইছো কেন!! এতো ফুলছো কেন!!” তখন কষ্ট পেতাম ঘরে বসে লুকিয়ে কাঁদতাম ৷ আমি যে মোটা হয়েছি এটা আমার মাথায় এতো এমনভাবে ঢুকে গিয়েছিলো যে আমি বাইরে যেতে চাইতাম না এমনকি আয়নাতে নিজেকে দেখতে পর্যন্ত ভালো লাগত না ৷ বন্ধুদের সাথে ঘুরতে কিংবা পারিবারিক দাওয়াতে পর্যন্ত না ৷ বাইরে গেলে মনে হতো সবাই আমাকে দেখছে আমার মোটা শরীরটা নিয়ে টিটকারী করছে ! হাসাহাসি করছে! এটা কতো খারাপ অনুভূতি শুধুমাত্র তারাই বুঝবে ৷ এমনি এমনি যে এমন করতাম তা নয়, মোটা হবার জন্য রাস্তা ঘাটে থেকে শুরু করে আপন মানুষদের হরেকরকম বাজে মন্তব্য শুনতে শুনতে আমার মনের কনফিডেন্স জিরো হয়ে গিয়েছিলো ৷ আমার মনে হয়, কানা / খোঁড়া একটা মানুষকে লোকে যখন কানা খোঁড়া বলে তখনও বোধহয় মানুষের এতো কষ্ট হয়না যতটা কষ্ট একজন মোটা মানুষকে সকলের সামনে মোটা বলে তাছিল্য করলে লাগে! আমি জানি,আমি ডিপ্রেশনের সর্বচ্চ পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছিলাম ! নিজের ফোনে এমনকোনো ছবি রাখতাম না যেখানে আমাকে দেখতে মোটা লাগছে ! আজ বলতে কোনো লজ্জা লাগছে না যে , আমি কখনোই মোবাইলের ব্যাক ক্যামেরা দিয়ে ছবি তুলতে চাইতাম না কারন আমাকে বেশি মোটা লাগতো!! রিভিউতে যে ছবিটা দিয়েছি সেটি আমার শ্রদ্ধেয় মেন্টর আপুর কথামত তুলে রেখেছিলাম ৷ আমি শাড়ি পড়তে চাইতাম না কারন আশেপাশের লোকজন যা তা কমেন্ট করতো ৷ আমি নিজেও জানতাম অতিরিক্ত মোটা হবার কারনে দেখতে একটু বয়স বেশি লাগতো আমার ৷ মাথায় সারাক্ষণ চিকন হবার তীব্র জেদ কাজ করতো ৷ আগের পোস্টেও বলেছি আবারও বলে রাখি আমার পরিবার গ্রামের সাধারন মধ্যবিত্ত পরিবার ৷ ব্যালেন্স ডায়েটের ব্যাপারে বিন্দুমাত্র ধারনা ছিলোনা তাদের ৷ ডায়েট বলতে তারা জানে ভাত না খেয়ে ইচ্ছামতো রুটি খেয়ে ভোরে উঠে দৌঁড়ালেই ওজন কমে ! আব্বুকে বহুবার বলেছি ডায়েটের ব্যাপারে , উনি গুরুত্ব তো দিতোই না বলতো, এসব কিছুই না দেরী করে ঘুম থেকে ওঠো এজন্যই তুমি মোটা ৷ কম করে ঘুমাও আর হাঁটাহাটি করো ব্যাস!

লুজ টু গেইনে আমি আগে থেকে ছিলাম সবার ট্রান্সফরমেশন দেখতাম, ভালো লাগতো কিন্তু ঐ যে চিকন হবার তীব্র ইচ্ছা ধৈর্য কমিয়ে দিয়েছিলো ৷ মানুষ সেটাই বেশি পছন্দ করে যেটার ফলাফল দ্রুত পাওয়া যায় ৷ দ্রুত ওজন কমানোর জন্য যে যা বলতো সমস্ত টোটকা( লবু পানি, মধু পানি, জিরাপানি etc) মানতাম আর পরেরদিন আয়নার সামনে গিয়ে দেখতাম কতটুকু শুকিয়ে গেলাম ! এভাবে দু বছর চলে গেলে ওজন আরো নিয়ন্ত্রনের বাইরে চলে গেলো ৷ করোনা এলো সবকিছু লকডাউন হয়ে গেলো আমিও নিজেকে বোঝালাম যে এভাবে হবেনা ধৈর্য ধরতে হবে পরিশ্রমও করতে হবে ৷ গ্রামে থাকি মানুষজন নানা রকম কথা বলে এসব শুনলে হবেনা, আমাকে কেউ উৎসাহ তো দিবেই না কিন্তু বাইরে গেলে (মোটা, বস্তা ) এসব বলতেও ছাড়বে না ৷ সো, আমাকে সবকিছুর উর্দ্ধে গিয়ে নিজেকে চেঞ্জ করতে হবে ৷ এরপরে লুজ টু গেইনে মলুয়া আপুর মেন্টরশীপ নেই ৷ তখনও আমার পরিবার হাজারটা সমস্যা করেছে যে এসব অনলাইনে কি কিভাবে ওজন কমবে এসব করে লাভ নাই ব্লা ব্লা … অনেককিছু ৷ কিন্তু আমি হাল ছাড়িনি ৷ অনেক জেদ করি আব্বুকে কোনোমতে বুঝিয়ে শুরু করি ৷ পরিবারে আমার সবচেয়ে বড় সাপোর্ট ছিলো আমার মা আর বাইরের সাপোর্ট ছিলো আমার উনি (fiance)☺, সারাক্ষন আমার ঘ্যানঘ্যান সহ্য করেছে ৷ যখন যা দরকার পাঠিয়েছে ৷ আগের পোস্টে বলেছি আমাদের বাড়ি প্রত্যন্ত গ্রামে ৷ এখানে গ্রামের বাজারে কিচ্ছু পাচ্ছিলাম না ৷ লকডাউনের মধ্যে প্রয়োজনীয় জিনিসগুলো কুরিয়ারে করে আসতেই ১৩/১৪ দিন সময় লেগে যেতো ৷ এসব কিছুর মধ্যেও রীতিমতন পরিবারের সাথে যুদ্ধ করে ঝগড়া করে আমার ডায়েট চালিয়েছি ৷ যার ফলাফল আমার পরিবার এখন নিজের চোখে দেখতে পাচ্ছে ৷ ভালো লাগে যখন আব্বুও আমাকে মাঝে মাঝে বলে যে, " আমার ওজনটা একটু কমিয়ে দাওনা “:-D

যেসব লোকজনের আমার মোটা হওয়া নিয়ে এতো সমস্যা ছিলো তারা এখন দেখা হলেই বলে " ওমাগো ! এতো শুকিয়ে গেছো কেন! আগেই বেশি ভালো লাগতো ! এই সেই ব্লা ব্লা " আমি বুঝি তারা হিংসায় জ্বলে :-D ৷ তাদের মুখের উপর জবাব দিতে হয়না নিজেরাই বুঝে যায় সব ৷

আমি আমার বেস্ট এফোর্ট দিয়ে চেষ্টা করেছি ওজন কমানোর ৷ মেন্টরের কথার বাহিরে কখনোই কিছু করিনি ৷ এক্সারসাইজে আমার বরাবর ভয় আর আলসেমি ছিলো এখন ডেইলি ২ ঘন্টা এক্সারসাইজ অনায়সেই করতে পারি ৷ একদম ঝরঝরে লাগে নিজের কাছেই ৷ খুব খুব খুশি লাগে যখন ৩ বছর আগের বাদ দিয়ে দেয়া জামাগুলো স্মুথলি গায়ে ফিট হয় ৷ সারাজীবনে শুধু দর্জি মামাকে জামা কেন টাইট করে বানিয়েছে এজন্য বকা দিয়েছি বার বার বিরক্ত করেছি একটা ড্রেস বার বার ঢিলা করতে দিয়েছি ৷ এই প্রথমবার আমি আমার সমস্ত ড্রেসগুলি দর্জিমামাকে দিয়েছি যাতে টাইট করে দেয় ! এসব নিজের কাছেই ভালো লাগে ☺ ৷ এখন আর জাংক করার ইচ্ছা হয়না ৷ এই ছয়মাসে একটা মিষ্টিও আমি ছুঁয়ে দেখিনি ৷ যদিও আমার ওজন একটু ধীরে ধীরেই কমেছে এবং আরো খানিকটা ওজন কমাতে হবে ৷ লুজ টু গেইন এবং মেন্টর আপুর শেখানো পথে বাকি ওজনটুকু কমিয়ে নিবো ইনশাআল্লাহ্ ৷ মলুয়া আপুকে যে কতো বিরক্ত করেছি ! একটা প্রশ্ন ঘুরিয়ে পেচিয়ে হাজারবার জিজ্ঞাসা করেছি আপনি কখনো রেগে যাননি ♥ ৷ ফ্যামিলির সাথে সমস্যা হয়েছিলো আপনি কল করে কতোকিছু বুঝিয়েছিলেন শান্তনা দিয়েছেন ♥ ৷ হয়তো আপনার সবথেকে ঝামেলাদায়ক ক্লায়েন্ড আমিই ছিলাম এজন্য আমাকে মনে রাখবেন :-P আপনাকে ধন্যবাদ জানানোর ভাষা আমার জানা নেই , তবে ছোট করে বলতে যদি বলি তবে, জীবন থেকে প্রশংসা হারিয়ে গিয়েছিলো .. আপনার জন্য সেটা ফিরে এসেছে ☺ ৷ আপনাকে ভালোবাসা জানাই ৷

এবং না বললেই নয়, লুজ টু গেইন আমার জীবনের সবথেকে উপকারী প্লাটফর্ম এটা আমি মানতে বাধ্য ৷ফেসবুক থেকে পাওয়া আমার জীবনের সেরা প্রাপ্তি লুজ টু গেইন থেকে পেয়েছি ৷ এখানে না এলে বুঝতামই না যে সঠিক খাদ্যাভাস কি, হিসেব করে সবরকম খাবার খেয়ে ওজন নিয়ন্ত্রনে আনা যায় কিভাবে ৷ আমি আজীবন কৃতজ্ঞ থাকবো এই গ্রুপটার কাছে ৷ ধন্যবাদ সাজেদুর ভাইয়া এমন একটা প্লাটফর্ম তৈরী করেছেন ৷ ধন্যবাদ আমার মেন্টর @Molua khan আপুকে ৷এবং গ্রুপের সাথে সংশ্লিস্ট সকলকে ধন্যবাদ জানাই যারা আমাদের মতো ডিপ্রেশনে থাকা মানুষদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করেন ৷

comments powered by Disqus