before

Nipa Begum

  • Mentor's name : Samira akhter
  • Previous Weight : 100.6 KG
    Diet : Customized Plan
    Weight Losed : 15.399999999999991 KG
    Time : 24 Weeks

আমি আমার ওজন কমানোর জার্নিটা গতকাল একটু শেয়ার করেছি আপনাদের সাথে। আজকে আমার ২৪ সপ্তাহের মেন্টরশীপ সম্পর্কেও বলবো।

আমার মেন্টর ছিলেন-Samira Akhter আপু।

পূর্বের ওজন—১০০.৬ কেজি

বর্তমান ওজন-৮৫.২ কেজি

ওজন কমেছে-১৫.৪ কেজি

পেটের মাপ কমেছে-৬.৫ ইন্চি

বুকের মাপ কমেছে-৭ ইন্চি।

২০১৯এর ফেব্রুয়ারি তে ওজন ছিলো ৯৬/৯৭ কেজি।জুনের দিকে থাইরয়েডের ডাক্তারের কাছে গেলাম ওজন তখন ১০০কেজি প্লাস।ডাক্তার বললো ওজন কমাতে হবে।আমার তখন ধৈর্য্য নেই।তাও ২০১৯শের আগস্টের দিকে এই গ্রুপে বি এম আর দিয়ে জানতে চাইলাম কতো ক্যালরি ফলো করব।রোজী আপু বলে দিলেন কতো ক্যালরি নিব।ঐ অনুযায়ী নিজেই একটা চার্ট বানালাম(ও ফিট গাইড টা কিন্তু পড়ে নিয়েছিলাম) আর সেপ্টেম্বর থেকে ডিসেম্বর একটু মেইনটেইন করে ওজন ১০০প্লাস থেকে ৯২/৯৩ কেজিতে আসে।ঐ সময় আমি প্রথম কিচেন স্কেলে মেপে খাই।আগে যে ডায়েট করেছিলাম তখন মেপে খাইনি।আবার আমি হাল ছেড়ে দেই।কিন্তু ২০২০এর মার্চ পর্যন্ত ওজন ৯২/৯৩ কেজিতেই ছিলো।

মার্চ থেকে শুরু হল লকডাউন।তখন ওজন আরো বাড়া শুরু হল। শোনলাম মোটা মানুষের রিস্ক বেশি কভিডে।ভয় পাইলাম।মনে হল নিজের জন্য না হলেও বাচ্চাদের জন্য বেঁচে থাকতে হবে-ভালো থাকতে হবে।তখনই জুনের দিকে মেন্টরশীপ নিতে চাইলাম কিন্তু তখন বড় যে সমস্যা দেখা দিলো আমাদের ওখানে আলু ছাড়া তেমন কোন সবজি পাওয়া যাচ্ছিল না।সুপারশপ গুলোতে সবজি নাই-মাছ নাই।মাছ-সবজি ছাড়া কিভাবে ডায়েট করবো তাই আর করা হলোনা।তারপর অক্টোবর -নভেম্বরে ব্যাস্ত হয়ে গেলাম বাসা বদলানোতে।ঐ সময় আমার একটা মেন্টাল স্ট্রেস ও যায়।কারন ৭ বছর বসবাস করা একটা শহর ছেড়ে প্রায় ৭০০ কি:মি: দূরে অন্য শহরে মুভ করা।আমার বাচ্চা দুইটার জন্মস্থান কতো কতো স্মৃতি।কতো পরিচিতদের ফেলে আসা।যদিও নিজের দেশের কোন মানুষ না সব ফরাসি মানুষজন কিন্তু মনে হচ্ছিলো নিজের পরিবার ছেড়ে ,দেশ ছেড়ে আসছি।মেন্টালি খুব খারাপ অবস্তা ছিলো । হুট করেই SMS দিলাম মেন্টরশীপের জন্য এবং আমি মেন্টর হিসাবে সামিরা আপুকেই চাইলাম আর পেয়েও গেলাম।আপুর সাথে আমার জার্নিটা শুরু হল ৮ই ডিসেম্বর ২০২০ থেকে।ওজন তখন ১০০.৬ কেজি।একটু ভয়ে ছিলাম কি খাবার থাকবে খেতে পারবো কিনা।কিন্তু আপু প্রথমেই জিজ্ঞেস করলেন আমি কি খেতে পছন্দ করি ঐ অনুযায়ী চার্ট করে দিলেন।শুরু হল জার্নি সম্পূর্ন আমার পছন্দের খাবার দিয়ে।জীবনে এই প্রথম এক্সারসাইজ করা শুরু করলাম।সত্যি কথা হল ডায়েট থেকেও আমার ভয় ছিল এক্সারসাইজ নিয়ে।আমার মনে হতো এক্সারসাইজ আমার পক্ষে সম্ভব না।দেখলাম পারছি ধীরে ধীরে।কিছু করতে পারতাম না আপু আবার চেন্জ করে দিলেন।শেষের দিকে শারিরীক বিভিন্ন সমস্যার কারনে এক্সারসাইজটা মেইনটেইন করতে পারিনি।

আমার কনস্টিপেশনের সমস্যা অনেক আগে থেকেই।এর জন্য আপুকে চার্টের খাবার যোগ-বিয়োগ করতে হত ঘনঘন।আর এই প্রথম একটা রমজান গেলো খুব সুন্দর ভাবে। গ্যাস্টিকের সমস্যা নাই বুক জ্বালাপুড়া নাই।

এই ২৪ সপ্তাহের ভেতরও অনেক মেন্টাল স্ট্রেস গেছে।দেশে প্রথম আমার ভাই কভিড আক্রান্ত হলো পরে আব্বা-আম্মা সহ সবাই।আর এখানে আমার হাসবেন্ড।আমার হাসবেন্ডের যখন কভিড পজিটিভ আসলো আমার মনে হয়েছিলো আগে হলে আমি ভয়েই অসুস্হ্য হয়ে যেতাম,কিন্তু এর আগে আমি গ্রুপে ২জন আপুর রিভিউ দেখি তারা নিজেরাই কভিড আক্রান্ত হয়েছেন মেন্টরশীপ পোগ্রামে থাকাকালীন সময়ে এবং হেলদি লাইফস্টাইলে থাকার জন্য দ্রুত সেড়ে উঠেন ।উনাদের এই রিভিউ আমাকে মেন্টালি অনেক সাহস দিয়েছে।আমার মনে হয়েছে আমিও তো হেলদি লাইফস্টাইল মেইনটেইন করছি তাহলে যদি কিছু হয়েও যায় তাহলে আল্লাহর রহমতে সেড়ে উঠবো। একজন কভিড রোগীর কেয়ার করা এরমধ্যে নিজে ও বাচ্চাদের নিরাপদে রাখা কি যে কষ্টকর ছিলো।বাচ্চাদের বাবা এক রুমে আইসোলেশনে আর বাচ্চাদের অন্য রুমে ল্যাপটপ দিয়ে বসিয়ে রেখে বাইরে যেতে হতো দরকারী কেনাকাটার জন্য।এতো মেন্টাল আর শারিরীক দখল গেছে আমি সুস্হ্য থাকতে পারতাম না যদি এই নিয়মের মধ্যে না থাকতাম।এই খারাপ সময়ে সামিরা আপু সবসময় সাহস দিয়েছেন।

এই ২৪ সপ্তাহে মাঝে মাঝে ওজন বেড়ে গেছে,আবার অনেক সময় এক্সারসাইজ করতে পারতাম না মনে হতো আপু হয়ত রাগ করবেন কিন্তু উল্টো আপু আমাকে বুজাঁতেন হয়তো এসব কারনে ওজন বাড়ছে সমস্যা নেই কমে যাবে।আপু আমাকে বললেন আমার খুব ধৈর্য্য আছে যে এই ২৪ সপ্তাহ আমি ধৈর্যের সাথে লেগে ছিলাম। আর আমি ভাবছি উল্টো। আপু যেভাবে আমাকে মেইনটেইন করেছেন আমার মনে হত একটা মানুষের এতো ধৈর্য্য থাকে কিভাবে।

শুরু করার সময় মনে হয়েছিলো ২৪ সপ্তাহ কিভাবে যে পারবো কিন্তু শেষের দিকে মনে হচ্ছিলো দিনগুলো আরেকটু ধীরে যাচ্ছে না কেন।শেষের দিকে শারিরীক অসুস্হতার জন্য সব একটু উলট-পালট হয়েছে।তারপরও আলহামদুলিল্লাহ্।আপু ঈদ+অসুস্হতার জন্য আমাকে আরও এক সপ্তাহ বেশী গাইড করেছেন।

এই হল আমার গল্প।এখনো অনেক রাস্তা যেতে হবে।সবাই দোয়া করবেন।তবে এখন মনে সাহস আছে আমি পারবো আর লুজ টু গেইন (Lose To Gain) তো আছেই সাহায্যের জন্য। এই গ্রুপের সব মেন্টরের জন্য অনেক অনেক দোয়া ও ভালবাসা।![❤️](https://static.xx.fbcdn.net/images/emoji.php/v9/ted/2/16/2764.png =16x16)![❤️](https://static.xx.fbcdn.net/images/emoji.php/v9/ted/2/16/2764.png =16x16)আপনারা কার জীবন কিভাবে বদলে দিচ্ছেন সেটা হয়তো জানতে পারছেন না।

সবশেষে সামিরা আপুকে আবারো ধন্যবাদ সবকিছুর জন্য।অনেক দোয়া ও ভালবাসা আপনার জন্য।![❤️](https://static.xx.fbcdn.net/images/emoji.php/v9/ted/2/16/2764.png =16x16)![❤️](https://static.xx.fbcdn.net/images/emoji.php/v9/ted/2/16/2764.png =16x16)

সবাই ভালো থাকবেন,সুস্হ্য থাকবেন আর নিরাপদে থাকবেন।

comments powered by Disqus